• ad-5
    হোমিওপ্যাথি বিডি.কম ওয়েব সাইটে আপনি কি নতুন ? তা হলে এখানে ক্লিক করুন । হোমিওপ্যাথি বিডি.কম সাইট থেকে উপাজিত অর্থের এক অংশ গরীব দূঃখীদের জন্য ব্যায় করা হয় । একটি ফ্রী হোমিওপ্যাথি চিকিৎসার জন্য তৈরী বাংলা ব্লগ সাইট ।

নবজাতক জন্ডিস , নিউনেটাল জন্ডিস , ফিজিওলজিক্যাল জন্ডিস এ হোমিওপ্যাথি চিকিৎসা

এই পোষ্টটি সংরক্ষণ করা অথবা পরে পড়ার জন্য নিচের Save to Facebook বাটনে ক্লিক করুন ।

জন্ডিসঃ
শরীরের চামড়া (Skin) এবং ভেতরের আবরণ বা চোখের সাদা অংশ (Sclera) হলদু বর্ণ ধারণ করাকে জন্ডিস (Jaundice) বলা হয়।

নবজাতক জন্ডিসঃ
জন্মের প্রথম ৪ সপ্তাহ বা ২৮ দিন বয়স পর্যন্ত সময়কালকে নিউনেটাল পিরিয়ড ( Neonatal Period ) বলা হয় এবং এই বয়সের সব শিশু নবজাতক হিসেবে পরিচিত। যেহেতু এই বয়সে বেশির ভাগ শিশুদের জন্ডিস দেখা দেয়, তাই একে নবজাতক বা নিউনেটাল বা ফিজিওলজিক্যাল জন্ডিস বলে।
জরায়ুর মধ্যে, বিলিরুবিন অমরা অতিক্রম এবং মা দ্বারা নিষ্কাশিত হয়। জন্মের পর, শিশু তার নিজস্ব রেচন প্রক্রিয়া সক্রিয় করা আবশ্যক হয়ে পড়ে এবং যকৃৎ পুরোপুরি কর্মক্ষম হয়ে উঠতে একটু দেরি হলে জন্মের ২-৩ দিনের মধ্যে বিলিরুবিনের মাত্রা বেড়ে যায়, ৭০% থেকে ৮০% নবজাতকের জন্মের পর জন্ডিস হতে পারে। ৫০% ক্ষেত্রে একে চিকিৎসাবিজ্ঞানের ভাষায় ফিজিওলজিক্যাল জন্ডিস বলে। এই জন্ডিস সাধারণত জীবনের প্রথম সপ্তাহ শেষে মুছে যায় বা ভালো হয়ে যায়। এতে বিলিরুবিন মূলত আনকঞ্জুগেটেড বা অসম্পৃক্ত হয়, যা শিশুর জন্য উপকারী।
মা এবং সন্তানের রক্তের গ্রুপের অমিল বা গরমিল থাকলেও জন্ডিস দেখা দিতে পারে। নবজাতক সঠিক সময়ে মায়ের পর্যাপ্ত বুকের দুধ না পেলেও হতে পারে।

নবজাতক জন্ডিসের কারণঃ

অস্থায়ী কারণঃ(Transient causes)
* হেপাটিক সংক্রমণ
* পচন
* বিপাকীয় রোগ
* পিত্ত প্লাগ সিন্ড্রোম
* অ্যাড্রিনাল রক্তক্ষরণ
* সম্পর্কিত ড্রাগ

স্থায়ী কারণঃ(Persistent causes)
* নবজাতক হেপাটাইটিস
* বাইলারি এট্রেসিয়া (Bilary Atrasia)
* কলেডকাল সিস্ট (Choledochal cyst)
* এলাজাইল সিন্ড্রোম (Alagile syndrome)
* নবজাতকের অবস্ট্রাক্টিব জন্ডিসের কারনে সাধারণ পিত্তনালীতে স্বতঃস্ফূর্ত ছিদ্র থাকা;

সাধারণঃ(Common)
* বাইলারি এট্রেসিয়া (Bilary Atrasia)
* জন্মগত ভাবে পিত্তনালীতে অস্বাভাবিকতা (Choledochal cyst)

অসাধারণঃ(Uncommon)
* সংক্রামক কলেঞ্জাইটিস (Infectious cholangitis)
* প্রাথমিক স্ক্লেরসিস (Primary sclerosis)
* ল্যাঙ্গারহ্যান্স সেল হিস্টোলাইসিস (Langerhans cell histiocytosis)
* কলেলিথিয়াসিস (Cholelithiasis)

নবজাতক জন্ডিস উপসর্গঃ
জন্ডিসের লক্ষণ নিম্নলিখিত হতে পারে
* চরম দুর্বলতা
* মাথা ব্যাথা
* জ্বর
* ক্ষুধা কমে যাওয়া
* বমি বমি ভাব
* কোষ্ঠকাঠিন্য
* কনজাংটিভা, জিহ্বা, ত্বক, এবং প্রস্রাব হলুদ বিবর্ণতা ।

নবজাতক জন্ডিস নির্ণয়ঃ
খালি চোখে দেখে এ জন্ডিস নির্ণয় করা যেতে পারে। শিশুর হাতের তালু, মুখ, বুক এবং পেটের ওপর পর্যন্ত হলুদ হতে পারে। মলের রং সবুজও হতে পারে।

সুস্থ শব্দ নবজাত: রক্তের প্রকার এবং কম্বস পরীক্ষার (মায়ের সাথে তুলনা), সিরাম বিলিরুবিন স্তর।

অন্য কোন শিশু: সম্পূর্ণ এবং সরাসরি সিরাম বিলিরুবিন মাত্রা, ডিফারেনশিয়াল কাউন্ট, মায়ের রক্তের গ্রুপ এবং Rh অবস্থা, শিশুর রক্তের গ্রুপ এবং Rh অবস্থা, প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ কম্বস (Coombs), এবং রেটিকুলোসাইট সংখ্যা এবং পেরিফেরাল স্মিয়ারের সঙ্গে সম্পূর্ণ রক্ত গণনা (হেমোলিটিক রোগ আছে সন্দেহে)।

সরাসরি উঁচু বিলিরুবিন মাত্রা: যদি উপরোক্ত উপরন্তু, পদার্থ, পেটের আল্ট্রাসাউন্ড, রেডিওনিউক্লাইড স্ক্যান (পৈত্তিক শারীরস্থান মূল্যায়ন) কমানোর জন্য লিভার ফাংশন পরীক্ষা, বিলিয়ারি বাধা, রক্ত ও প্রস্রাব কালচার, টর্চ স্ক্রিন (TORCH screen), প্রস্রাব বিবেচনা।

নবজাতক জন্ডিসের ব্যবস্থাপনাঃ
* শিশুকে ঠিকমতো বুকের দুধ খাওয়ানো।
* শিশুকে ২ থেকে ৩ ঘন্টা পর পর বুকের দুধ দেওয়া।
* প্রতিদিন সকালে নবজাতককে আধা ঘণ্টা রোদ পোহাতে দেওয়া।
নবজাতক জন্ডিসের হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসাঃ
হোমিওপ্যাথি ঔষধ সবচেয়ে জনপ্রিয় একটি চিকিৎসা পদ্ধতি। স্বতন্ত্র বৈশিষ্ট্যে মণ্ডিত করে এবং উপসর্গ মিল তত্ত্ব উপর ভিত্তি করে ওষুধ নির্বাচন করে এই চিকিৎসা করা হয়। এটি সম্পূর্ণ স্বাস্থ্যে ফিরে আসার একমাত্র উপায়, যা থেকে সব চিহ্ন এবং উপসর্গ মুছে পূর্ব স্বাস্থ্যে ফিরে যেতে পারে। হোমিওপ্যাথি লক্ষ্য নবজাতক জন্ডিস দূরকরণ নয়, তার অন্তর্নিহিত কারণ এবং ব্যক্তিগত সংবেদনশীলতাও মোকাবেলা হয়। নবজাতক জন্ডিস চিকিৎসায় স্বতন্ত্র ঔষধ নির্বাচন এবং চিকিৎসার জন্য, রোগীকে একজন যোগ্যতাসম্পন্ন হোমিওপ্যাথিক ডাক্তারের সঙ্গে পরামর্শ করা উচিত। নবজাতক জন্ডিসের চিকিত্সার সহায়ক নিম্নলিখিত ওষুধ আছে:

একুনাইট, বভিস্টা, চেলিডোনিয়াম, চায়না, ব্রায়োনিয়া, ক্যামোমিলা, চিয়োন্যান্থাস, কলিন্সোনিয়া, ইলাটেরিয়াম, মারকিউরাস, মার্ক ডাল, মাইরিকা, ন্যাট্রাম সালফ, নাক্স ভমিকা, ফসফরাস, পডোফাইলাম, সেপিয়া, সালফার, এবং অনেক অন্যান্য ওষুধ।

ঔষধি গাছ সম্পর্কে জানতে এখানে ক্লিক করুন ।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

-
namaj.info bd news update 24 short film bd _Add
.
*** নিজে সুস্থ থাকি , অন্যকে সুস্থ রাখি । সাস্থ্য ও চিকিৎসা বিষয়ে যে কোন প্রশ্ন থাকলে জানাতে পারেন ! হোমিওপ্যাথি বিডি.কম একটি ফ্রী হোমিওপ্যাথি চিকিৎসার জন্য তৈরী বাংলা ব্লগ সাইট । ***