• ad-5
    হোমিওপ্যাথি বিডি.কম ওয়েব সাইটে আপনি কি নতুন ? তা হলে এখানে ক্লিক করুন । হোমিওপ্যাথি বিডি.কম সাইট থেকে উপাজিত অর্থের এক অংশ গরীব দূঃখীদের জন্য ব্যায় করা হয় । একটি ফ্রী হোমিওপ্যাথি চিকিৎসার জন্য তৈরী বাংলা ব্লগ সাইট ।

অনিদ্রা বা নিদ্রাহীনতা রোগের হোমিওপ্যাথি চিকিৎসা

এই পোষ্টটি সংরক্ষণ করা অথবা পরে পড়ার জন্য নিচের Save to Facebook বাটনে ক্লিক করুন ।

Insomnia, Sleeplessness (অনিদ্রা, নিদ্রাহীনতা) ঃ – আধুনিক যন্ত্রসভ্যতা মানুষের জীবনযাত্রাকে করেছে ভয়ঙ্কর জটিল আর এই জটিলতা কেড়ে নিয়েছে তার আরামের ঘুম। অনিদ্রা মানে কম সময় ঘুমানো নয় ; বরং অনিদ্রা মানে হলো ঘুমিয়ে তৃপ্তি না পাওয়া, ক্লান্তি দূর না হওয়া, দেহ-মনে সতেজ ভাব না আসা। নিদ্রাহীনতা নিয়ে একেক জনের অভিযোগ একেক রকম। কারো ঘুমই আসতে চায় না, কেউ ঘুমিয়ে তৃপ্তি পান না, কারো ঘুম আসতে আসতে অনেক রাত হয়ে যায়, কারো ঘুম খুব ভোরে ভেঙ্গে যায়, কারো ঘুম একটু পরপরই ভেঙ্গে যায় ইত্যাদি। এই অনিদ্রা রোগ বা নিদ্রাহীনতার হাত থেকে বাচাঁর জন্য মানুষ বোতলের পর বোতল ঘুমের ট্যাবলেট সাবাড় করছে ; তাতে প্রথমে কিছুদিন ঘুম হলেও পরে আর ঘুমের ট্যাবলেটেও কোন কাজ হয় না। অথচ আমাদের অনেকেই জানি না, নিদ্রাহীনতার সবচেয়ে ভালো চিকিৎসা আছে হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা বিজ্ঞানে এবং অধিকাংশ ক্ষেত্রে এক ডোজ হোমিও ঔষধেই নিদ্রাহীনতা স্থায়ীভাবে সারিয়ে তোলা যায়।

নিদ্রাহীনতা সাধারণত ৩ ধরণের হয়ে থাকে। যথা- সাময়িক (Transient), সবিরাম বা কিছুদিন পরপর দেখা দেওয়া (Intermittent) এবং স্থায়ী বা দীর্ঘ স্থায়ী (Chronic)। অনিদ্রা যদিও নারী-পুরুষ উভয়েরই হতে পারে ; তথাপি এটি মহিলাদের মধ্যে বেশী হতে দেখা যায়। অনিদ্রার প্রধান প্রধান কারণগুলোর মধ্যে আছে মানসিক চাপ/দুঃশ্চিন্তা (Stress), উৎকণ্ঠা (anxiety), বিষন্নতা (depression), ভীতি (phobia), মানসিক ভারসাম্যহীনতা (schizophrenia), ঘুমের টাইম উলটপালট করা (Reversal of sleep rhythm), বাতের ব্যথা (arthritis), উচ্চ রক্তচাপ (high blood pressure), হৃদরোগ (heart disease), হাঁপানি (asthma), এলার্জি (allergies), থাইরয়েড হরমোনের ত্রুটি (hyperthyroidism/hyperthyroidism), পারকিনসন্স ডিজিজ (Parkinson’s disease), মাথায় আঘাত পাওয়া (head injury), গভর্ধারণ (pregnancy), মাদকাসক্তি (addiction), ঘুম-বিষন্নতার ঔষধের অতিরিক্ত সেবন (Drugs withdrawals) ইত্যাদি ইত্যাদি। বয়স বৃদ্ধির সাথে সাথে মানুষের নিদ্রা যাওয়ার ক্ষমতা কমতে থাকে। কিন্তু কেন ? হয়ত আল্লাহ্র ইচ্ছা, বয়ষ্ক ব্যক্তিরা জীবনের শেষ পযার্য়ে এসে রাত জেগে ইবাদত-বন্দেগী করে করে তাদের স্রষ্টার নৈকট্য অজর্ন করতে যাতে কোন কষ্ট না হয়।

অনিদ্রা রোগের বংশগত সম্পর্ক আছে ; তার মানে পিতা-মাতার অনিদ্রা রোগ থাকলে সন্তানদেরও অনিদ্রা রোগের আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা আছে। সাধারণত নিদ্রাহীনতার কারণে ক্লান্তি, দুবর্র্লতা, কোন কাজে মনোযোগ দিতে না পারা, খিটখিটে মেজাজ ইত্যাদি সমস্যা দেখা দিয়ে থাকে। সাময়িক নিদ্রাহীনতা (Transient insomnia) ঔষধ ছাড়াই কেবল জীবনধারায় (lifestyle) কিছুটা পরিবর্তন আনার মাধ্যমে দূর করা যায়। কিন্তু স্থায়ী বা দীর্ঘ স্থায়ী (Chronic) নিদ্রাহীনতা সারিয়ে তোলতে প্রথমে তার জন্য দায়ী শারীরিক-মানসিক রোগটিকে (underlying causes) চিকিৎসার মাধ্যমে দূর করতে হবে।

বহুল প্রচলিত এলোপ্যাথিক ঘুমের ট্যাবলেটগুলোতে ক্রনিক অনিদ্রা রোগের চিকিৎসায় তেমন কোন উপকার করে না। বরং এগুলো কেহ দীর্ঘদিন খেলে তার প্রতি নেশা (dependency) হয়ে যায়। তাছাড়া এই ঔষধগুলো আমাদের বিবেক, বিচারক্ষমতা, স্মরণশক্তি, বুদ্ধিমত্তা ইত্যাদির সমূহ ক্ষতি করে থাকে। আর গবেষণায় দেখা গেছে যে, যারা নিয়মিত এসব ঘুমের ট্যাবলেট খান, তাদের অকাল মৃত্যুর হার অন্যদের চাইতে বেশী। ঘুমের ট্যাবলেটের প্রতিক্রিয়ায় দিনের বেলায় কাজ-কর্ম, ইবাদত-বন্দেগী, গাড়িচালানো, হাঁটার সময় ব্যালেন্স রক্ষা করা ইত্যাদি কাজ করতে অনেক অসুবিধা হয় কিন্তু হোমিওপ্যাথিক ঘুমের ঔষধগুলোতে এসব সমস্যা নাই। অনেকে একসাথে অনেকগুলো ঘুমের ট্যাবলেট খেয়ে আত্মহত্যা করে বসে কিন্তু হোমিওপ্যাথিক ঘুমের ঔষধগুলো কেউ একসাথে অনেক পরিমাণে খেলেও মৃত্যুর সম্ভাবনা নাই।

Nux vomica : রাতে বিছানায় যাওয়ার পরে সারাদিনের কাজ-কর্মের চিন্তা মাথার ভিতরে কিলবিল করতে থাকে ; ফলে ঘুম আসতে চায় না। বিশেষত যারা বিভিন্ন ধরনের মাদকদ্রব্য সেবন করে, বেশী বেশী চা-কফি পান করেন, যাদের পেটের অসুখ বেশী হয়, নাক্স তাদের অনিদ্রায় ভালো কাজ করে থাকে।

Opium : ঘুমঘুম ভাব কিন্তু ঘুম আসে না। খুবই সেনসিটিভ, ঘড়ির কাটার শব্দ কিংবা দূরের কোন মোরগের ডাকেও তার ঘুম ভেঙ্গে যায়। দুঃস্বপ্ন দেখে, কুকুর, বিড়াল, প্রেতাত্মা, বোবায়ধরা স্বপ্নে দেখে, ঘুমের মধ্যে দম বন্ধ হয়ে আসে ইত্যাদি লক্ষণ থাকলে অপিয়াম ঔষধটি খেতে হবে।

Coffea cruda : মানসিক উত্তেজনা, উৎকন্ঠা, দুঃশ্চিন্তা থেকে অনিদ্রা দেখা দিলে তাতে কফিয়া প্রযোজ্য। সুসংবাদ শুনে, আনন্দের আতিষয্যে, শিশুদের দাঁত ওঠার বয়সে বা রাত জাগার কারণে অনিদ্রা হলে তাতে কফিয়ার কথা ভাবতে হবে। মহিলাদের সন্তান প্রসব পরবতী সময়ের অনিদ্রায় কফিয়া ভালো কাজ করে।

[ ভাল লাগলে পোস্টে অবশ্যই কমেন্ট বা শেয়ার করুন , শেয়ার বা কমেন্ট দিলে আমাদের কোনো লাভ অথবা আমরা কোনো টাকা পয়সা পাই না, কিন্তু উৎসাহ পাই, তাই অবশ্যই শেয়ার করুন । ]

ঔষধি গাছ সম্পর্কে জানতে এখানে ক্লিক করুন ।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

 
homeopathy.com.bd
-
namaj.info bd news update 24 short film bd _Add
.
*** নিজে সুস্থ থাকি , অন্যকে সুস্থ রাখি । সাস্থ্য ও চিকিৎসা বিষয়ে যে কোন প্রশ্ন থাকলে জানাতে পারেন ! হোমিওপ্যাথি বিডি.কম একটি ফ্রী হোমিওপ্যাথি চিকিৎসার জন্য তৈরী বাংলা ব্লগ সাইট । ***