• ad-5

বাদামের উপকারিতা

এই পোষ্টটি সংরক্ষণ করা অথবা পরে পড়ার জন্য নিচের Save to Facebook বাটনে ক্লিক করুন ।

আগেকার বেশিরভাগ স্বাস্থ্যসচেতক আখড়ায় হুশ হাশ করে সকাল, বিকেল দু’বেলা মুগুর ভাঁজতেন৷ আর পেটপুরে বাদাম খেতেন৷ তাঁদের মতে, বাদাম অতি পুষ্টিকর খাদ্য৷ এখনকার ‘ফিগার’ সচেতন মানুষ বাদাম থেকে শতদূরহস্ত৷ বাদাম মানেই ফ্যাট, ক্যালোরি বেশি৷ বাদাম মানেই ‘সুস্বাস্থ্য’-র (পড়ুন মোটা) আকর৷ তাহলে বাদাম কি কেবলই ক্ষীণকায়াদের জন্য উপযুক্ত? একেবারেই না৷ নির্দিষ্ট পরিমাণে নিয়মিত ডায়েটে রাখতে পারলে বাদাম নানা উপকার করবে৷ তবে রোস্টেড বা প্যাকেজিং বাদামের বদলে কাঁচা, জলে ভেজানো অথবা শুকনো বাদাম খাওয়া উচিত৷

বন্ধুবেশী বাদাম…
একমুঠো বাদাম খুব তাড়াতাড়ি পেট ভরাতে পারে৷ এবং অনেকক্ষণ পর্যন্ত কিছু না খেয়েও আপনি সতেজ৷ এর ফলে বাদাম যতই ফ্যাট বা প্রোটিন সমৃদ্ধ হোক না কেন আপনার ওজন নিয়ন্ত্রণেই থাকবে৷ কারণ, ভরা পেটে অন্য খাবারের দিকে নজর যাবে না আপনার৷ তাই মেদ ঝরাতে যারা ডায়েটের শরণাপন্ন তাদের জন্য বাদাম আদর্শ ডায়েট৷

এছাড়া, বাদাম অন্য খাবারের থেকে আসা ক্যালোরির মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে৷ ফলে শরীরে অতিরিক্ত ক্যালোরি জমতে পারে না৷ যা ওজন বাড়ানোর সহায়ক৷ বাদামের সঙ্গে হূদয়ের দারুণ সখ্য৷ সব ধরনের বাদামেই পাবেন ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড৷ এর মধ্যে বিশেষ করে ওয়ালনাটে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে আলফা লিনোলেক অ্যাসিড৷ এই ‘এএলএ’ হৃদয়কে সুরক্ষিত রাখতে সাহায্য করে৷

২০০৬ সালের সমীক্ষায় জানা গিয়েছে, কাঁচা ওয়ালনাট অলিভ অয়েলের মতোই উপকারী৷ এটি ফ্যাটি মিল নেয়ার পর হার্টের শিরা থেকে ইনফ্লমেশন আর অক্সিডেশন কমায়৷ রোজ আটটি ওয়ালনাট খেলে আপনিও এই উপকার পাবেন৷ চিনাবাদাম আর পিনাটে রয়েছে ‘ফলিক’ নামের খনিজ পদার্থ৷ এটি মস্তিষ্ক সুগঠিত করে৷ তাই গর্ভস্থ শিশুর ব্রেন সেল গঠনের জন্য অনেক সময় চিকিত্সকরা অন্তঃসত্ত্বাদের পিনাট নির্দিষ্ট পরিমাণে পিনাট খাওয়ার পরামর্শ দিয়ে থাকেন৷ এছাড়াও পিনাটে পাবেন ব্রেন বুস্টিং ভিটামিন ই৷ ক্রিমি ব্রেজিল নাট সেলেনিয়াম মিনারেলস-এ ভরপুর৷ এটি প্রস্টেট ক্যানসার রোধে সাহায্যকারী৷ এই বিশেষ ধরনের বাদামে বিটা সিটোটেরল স্টেরয়েড মেলে৷ যা প্রস্টেট এনলার্জমেন্ট কমায়৷ এক আউন্স ক্রিমি ব্রেজিল নাটে আছে ২০০ ক্যালোরি, ২১ গ্রাম ফ্যাট ও ৩ গ্রাম প্রোটিন৷ এই পরিমাণ বাদাম একজন পুরুষের দেহ সুগঠিত করার পক্ষে আদর্শ৷

অন্যান্য বাদামের থেকে আমণ্ডে রয়েছে বেশি পরিমাণে ক্যালসিয়াম, ফাইবার ও ভিটামিন ই, ফলিক অ্যাসড, মনোস্যাচুরেটেড ফ্যাট, ম্যাগনেসিয়াম, কপার, প্রোটিন৷ তাই আমন্ড যেমন অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট তেমনি হূদরোগ, লাং ক্যানসার সহ বহু রোগের প্রতিরোধক৷ একইসঙ্গে ব্যাড কোলেস্টেরলের পরিমাণ কমিয়ে শরীরে গুড কোলেস্টেরলের পরিমাণ বাড়ায়৷ রক্তবাহক জালিকার ডায়ালেশন করে৷ এবং শিরাগুলি নমনীয় রাখে৷

হিতে বিপরীত…
হবে তখনই যখন ডায়েটিশিয়ান বা চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়াই আপনি মুঠো মুঠো বাদাম খেতে থাকবেন৷ যেহেতু ফ্যাট, ফাইবার, প্রোটিন, ক্যালোরি, মিনারেল বাদামে অতিরিক্ত পরিমাণে থাকে তাই নির্দিষ্ট পরিমাণের বাইরে গিয়ে বাদাম খেলে প্রথমেই হজমের সমস্যা দেখা দেবে৷ আর বাড়তি ক্যালোরি জমতে জমতে ওবেসিটি বাড়াবে৷ তাই ডায়াটেশিয়ানদের মতে, এক থেকে দেড় আউন্স বা আধকাপের বেশি বাদাম আপনার ডায়েটে না রাখাই বুদ্ধিমানের কাজ৷

সমস্ত বাদামের মধ্যে কেবলমাত্র পেস্তা বাদামে ক্যালোরির পরিমাণ তুলনায় কম৷ তাই একটু বেশি পরিমাণে খেলেও ততটা ভয়ের ব্যাপার নেই৷ বরং এটি কোলেস্টেরলের মাত্রা ও ব্লাডপ্রেসার কন্ট্রোলে রেখে হূদরোগের সম্ভাবনা কমায়৷ বেশি পিনাট খেলে অতিরিক্ত সেলেনিয়ামের প্রভাবে টাইপ ২ ডায়াবেটিস হওয়ার সম্ভাবনা থাকে৷ পিকান, ওয়ালনাট আর কাজু বেশি পরিমাণে খেলে আচমকা কোলেস্টেরল ও রক্তচাপ কমে যেতে পারে৷ এর থেকে হূদরোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা একেবারে উড়িয়ে দেয়া যায় না৷ বাদাম বা বাদামের খোসা থেকে অনেকের অ্যালার্জি হয়৷ তাই বাদাম খাওয়ার আগে অবশ্যই ফুড অ্যালার্জি টেস্ট করিয়ে নিতে ভুলবেন না৷ এই জন্যেই চিকিৎসকেরা শিশুর বয়স তিন বছর হওয়ার আগে অনেক সময় বাদাম খাওয়াতে বারণ করেন৷

ঔষধি গাছ সম্পর্কে জানতে এখানে ক্লিক করুন ।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

namaj.info bd news update 24 short film bd _Add
.
*** নিজে সুস্থ থাকি , অন্যকে সুস্থ রাখি । সাস্থ্য ও চিকিৎসা বিষয়ে যে কোন প্রশ্ন থাকলে জানাতে পারেন ! হোমিওপ্যাথি বিডি.কম একটি ফ্রী হোমিওপ্যাথি চিকিৎসার জন্য তৈরী বাংলা ব্লগ সাইট । ***